বুধবার, ২৪ জুলাই, ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ |৯ শ্রাবণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
মহিলার স্বজনদের সন্ধান চায় পুলিশ  » «   কোম্পানীগঞ্জে ইয়াবা সহ আটক ১  » «   কোম্পানীগঞ্জে ইয়াবা সহ আটক ১  » «   কোম্পানীগঞ্জে উপজেলা প্রশাসনের ত্রাণ বিতরণ  » «   কোম্পানীগঞ্জ থানা পুলিশের অভিযানে ৫৮ অফিসার চয়েস সহ আটক ১  » «   দেশবাসী ও মুসলিম উম্মাহকে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন মুফতি ইমাম উদ্দিন  » «   একাত্তরের কথা’র অনলাইনভার্সন যাত্রা করছে আজ  » «   কোম্পানীগঞ্জ প্রবাসী উন্নয়ন পরিষদ ইতালি শাখার কমিটি গঠন  » «   কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী হাজী আমিনুল হকের গনসংযোগ  » «   কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ভাইস চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী সাংবাদিক আবিদুর রহমান  » «   সিলেট ৪ আসনে ইমরান আহমদের পক্ষে বিরামহীন প্রচারণায় ছাত্রনেতা সজিবুল ইসলাম  » «   মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক, কোম্পানীগঞ্জের বিশিষ্ট মুরব্বি কালা চাঁন মিয়ার ইন্তেকাল, বিভিন্ন মহলের শোক  » «   রাজনগর নতুন বাজার ফ্রেন্ডস স্টাফের দিনব্যাপী তাফসীরুল কোরআন মাহফিল  » «   কোটা বহালের দাবিতে কোম্পানীগঞ্জে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ  » «   কোম্পানীগঞ্জ প্রেসক্লাবে জমিয়ত মনোনীত প্রার্থীর মতবিনিময়  » «  

দেশে কোটিপতির সংখ্যা ৪৫ হাজার

companigonjerdak_3ব্যবসা-অর্থনীতি ডেস্কঃ ক্রমেই বড় হচ্ছে দেশের অর্থনীতির আকার। একই সঙ্গে বাড়ছে দেশের কোটিপতির সংখ্যা। কেন্দ্রীয় ব্যাংকের হিসেব অনুসারে ৩ মাসের ব্যবধানে ব্যাংকিং খাতে কোটিপতি আমানতকারীর সংখ্যা বেড়েছে ২ হাজার ৬৩৫ জন। চলতি বছরের জুন পর্যন্ত ১ কোটি টাকার ওপরে আমানত রেখেছেন এমন গ্রাহক রয়েছেন ৪৫ হাজার ৬৯৮ জন। ৩ মাস আগে মার্চে এ সংখ্যা ছিল ৪৩ হাজার ৬৩ জন। ২০১৪ সালের ডিসেম্বর শেষে এ সংখ্যা ছিল ৪৩ হাজার ৮০৮। কেন্দ্রীয় ব্যাংকের প্রতিবেদন অনুযায়ী এ তথ্য পাওয়া গেছে।
অর্থনীতিবিদরা বলছেন, কেন্দ্রীয় ব্যাংকের হিসাবে ৪৫ হাজার কোটিপতি আমানতকারী দেখানো হলেও এর বাইরে কোটি টাকার সম্পদের মালিক রয়েছেন আরও কয়েক লাখ। যারা ব্যাংকের বাইরেও আমানত রেখেছেন। বিভিন্ন আর্থিক প্রতিষ্ঠান, ডেভেলপার কোম্পানিসহ নানা কোম্পানিতেও রয়েছে কোটি কোটি টাকার আমানত।
কেন্দ্রীয় ব্যাংকের প্রতিবেদন অনুযায়ী, বিভিন্ন ব্যাংকে আমানতকারীর অ্যাকাউন্ট পর্যালোচনা করে দেখা গেছে, ৫০ কোটি টাকার ওপরে রয়েছে এমন আমানতকারীর সংখ্যা ৫৭৫ জন। ৪০ কোটি টাকার ওপরে রয়েছে ২০১ জন। ৩৫ কোটি টাকার ওপরে আমানত রেখেছেন ১৬৯ জন। ৩০ কোটি টাকার ওপরে রেখেছেন ২২৪ জন। ২৫ কোটি টাকার ওপরে রয়েছে এমন আমানতকারীর সংখ্যা ৩০৬ জন। ২০ কোটি টাকার ওপরে রয়েছে ৫২৫ জন গ্রাহকের। ১৫ কোটি টাকার বেশি আমানত রয়েছে ৯৩৮ জনের। ১০ কোটি টাকার ওপরে আমানত রেখেছেন ২ হাজার ৬৪ জন। ৫ কোটি টাকার বেশি আমানতকারী রয়েছেন ৬ হাজার ৮১৬ জন।
বাংলাদেশ ব্যাংকের পরিসংখ্যানে দেখা গেছে, চলতি বছরের আগস্ট মাসে সঞ্চয়ের আমানত দাঁড়িয়েছে ৬৯ হাজার ১৭৪ কোটি ৪০ লাখ টাকা, যা আগের মাসে ছিল ৭০ হাজার ২২৯ কোটি টাকা। এক মাসের ব্যবধানে সঞ্চয় কমেছে ১ হাজার ৫৫ কোটি টাকা বা ১ দশমিক ৫০ শতাংশ।
অর্থনীতিবিদসহ সংশ্লিষ্টরা বলছেন, দেশের ৪০ থেকে ৫০ হাজার মানুষের কাছে ৪০ শতাংশের বেশি সম্পদ কেন্দ্রীভূত হওয়ায় আয় বৈষম্য বেড়েছে। তাই ধনী-গরিবের বৈষম্যও বাড়ছে।
বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক এক গভর্নর বলেন, সম্পদের অসম বণ্টন ও অবৈধ আয়ের উৎসের কারণে আয় বৈষম্য প্রকট হচ্ছে। শুধু তাই নয়, সম্পদ ক্রমেই কিছুসংখ্যক লোকের হাতে কেন্দ্রীভূত হয়ে পড়ছে। এ অবস্থার মধ্যেও কোটিপতিদের একটি বড় অংশ বছরের পর বছর রাজস্ব ফাঁকি দিয়ে যাচ্ছেন, যা দেশের রাজস্ব আদায়ের ক্ষেত্রে বিরূপ প্রভাব ফেলছে।
উৎসঃ জাগোনিউজ

আপনার মতামত প্রদান করুন

টি মন্তব্য