বৃহস্পতিবার, ২০ জুন, ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ |৬ আষাঢ় ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
দেশবাসী ও মুসলিম উম্মাহকে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন মুফতি ইমাম উদ্দিন  » «   একাত্তরের কথা’র অনলাইনভার্সন যাত্রা করছে আজ  » «   কোম্পানীগঞ্জ প্রবাসী উন্নয়ন পরিষদ ইতালি শাখার কমিটি গঠন  » «   কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী হাজী আমিনুল হকের গনসংযোগ  » «   কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ভাইস চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী সাংবাদিক আবিদুর রহমান  » «   সিলেট ৪ আসনে ইমরান আহমদের পক্ষে বিরামহীন প্রচারণায় ছাত্রনেতা সজিবুল ইসলাম  » «   মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক, কোম্পানীগঞ্জের বিশিষ্ট মুরব্বি কালা চাঁন মিয়ার ইন্তেকাল, বিভিন্ন মহলের শোক  » «   রাজনগর নতুন বাজার ফ্রেন্ডস স্টাফের দিনব্যাপী তাফসীরুল কোরআন মাহফিল  » «   কোটা বহালের দাবিতে কোম্পানীগঞ্জে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ  » «   কোম্পানীগঞ্জ প্রেসক্লাবে জমিয়ত মনোনীত প্রার্থীর মতবিনিময়  » «   কোম্পানীগঞ্জে তিনদিনব্যাপী উন্নয়ন মেলা শুরু  » «   কলাবাড়ী মাদ্রাসা’য় শ্রেণীকক্ষ ও ভবন সংকটে শিক্ষাকার্যক্রম ব্যাহত  » «   কোম্পানীগঞ্জ প্রেসক্লাবের দ্বি-বার্ষিক নির্বাচন সম্পন্ন আবুল হোসেন সভাপতি আলীম সাধারণ সম্পাদক  » «   ছাতকের ব্যবসায়ী সিন্ডিকেট কর্তৃক নৌ চলাচলে বাঁধা প্রদান ও চাঁদাবাজি বন্ধের দাবি  » «   ধলাই সেতু রক্ষার মানববন্ধনে মানুষের ঢল  » «  

৩৬ বছর পর ১ সন্তান নীতি থেকে সরে আসল চীন

companigonjerdak_27 নিউজ ডেস্ক: অবশেষে এক সন্তান নীতি থেকে সরে এসেছে চীন। এখন থেকে চীনের দম্পতিরা চাইলে দুটি সন্তান নিতে পারবেন। চীনের সরকারি বার্তা সংস্থা সিনহুয়া আজ বৃহস্পতিবার এ বিষয়ে একটি সংবাদ প্রকাশ করেছে।

বিবিসির খবরে বলা হয়েছে, দেশটির জন্মহার এবং জনসংখ্যা বৃদ্ধির হার কমিয়ে আনার লক্ষ্যে ১৯৭৯ সালে চীন সরকার এক সন্তান নীতি প্রণয়ন করে। এ নীতির আওতায় একের অধিক সন্তান নিতে পারত না চীনের পরিবারগুলো। শুধু এ নীতি করেই থেমে থাকেনি দেশটি। কঠোরভাবে পালন করার জন্য বাধ্য করা হতো জনগণকে। এ জন্য যেসব পরিবার এক সন্তান নীতি ভঙ্গ করত তাদের জরিমানা করা হতো এমনকি চাকরি থেকেও বরখাস্ত করা হতো। ৩৬ বছর পর এক সন্তান নীতি থেকে সরে আসল বিশ্বের সবচেয়ে বেশি জনসংখ্যার দেশটি।

ধারণা করা হচ্ছে চীনের এক সন্তান নীতির ফলে দেশটিতে প্রায় ৪০০ মিলিয়ন বা ৪০ কোটি জনসংখ্যা কম হয়েছে এই কয়েক বছরে। তবে দেশটির বয়স্ক মানুষেরা এ নীতি থেকে সরে আসতে অনেক দিন থেকেই চাপ দিয়ে আসছিল সরকারকে।

তবে সময়ের সঙ্গে দেশটির কিছু কিছু রাজ্য এ নীতি শিথিল করে। এ ছাড়া বর্তমান কমিউনিস্ট পার্টিও গত দুই বছর ধরে রাষ্ট্রীয়ভাবে এ নীতি শিথিল করে দিয়েছিল। অবশেষে কমিউনিস্ট পার্টির নীতি নির্ধারণী কমিটির সামিটের শেষ দিনে আজ ঘোষণাটি আসল, চীন সরে আসবে এক সন্তান নীতি থেকে।

আপনার মতামত প্রদান করুন

টি মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ